ডেটা ফাঁস হওয়ার আরোপ লাগলো জনপ্রিয় টেলিকম সংস্থা Airtel এর ওপর , বিপদে গ্রাহকদের ব্যক্তিগত তথ্য

Arijit Chattopadhyay
Image Credit: Airtel

সম্প্রতি একটি প্রতিবেদনের মাধ্যমে জানা গেছে যে জনপ্রিয় টেলিকম সংস্থা এয়ারটেলের প্রায় 375 মিলিয়ন গ্রাহকের সংবেদনশীল তথ্য একটি চীনা হ্যাকিং গ্রুপ এর মাধ্যমে ব্রিচ বা ফাঁস হয়েছে এবং লক্ষ লক্ষ টাকাই সেই তথ্য ডার্ক ওয়েবে বিক্রি করা হয়েছে ।

দিনের পর দিন এই ডেটা ব্রিচ এর ঘটনা বেড়েই চলেছে । প্রবল নিরাপত্তার স্তর থাকার পরেও এই ডেটা ব্রিচ কে কোনও ভাবে আটকানো সম্ভব হচ্ছে না । চলুন দেখে নেওয়া যাক এয়ারটেল এর এই ডেটা ব্রিচ এর খবরটা কতটা সত্যি ?? এবং কি ভাবে এই ডেটা ব্রিচকে আটকানো যাবে ??

Airtel এই ডেটা ব্রিচ নিয়ে কি মন্তব্য করেছে ??

এয়ারটেল অবশ্য এই ডেটা ব্রিচ এর আরোপগুলিকে প্রবলভাবে অস্বীকার করেছে । এয়ারটেল এর মতে এই আশঙ্কাজনক খবরগুলি ছড়ানোর মাধ্যমে বাজারে কোম্পানির সুনাম নষ্ট করার চেষ্টা করা হচ্ছে । এয়ারটেলের একজন মুখপাত্র, সরাসরি একটি মিডিয়াই মন্তব্য করেছেন যে, “এয়ারটেল এর নিজস্ব সিস্টেম থেকে কোনও ডেটা ব্রিচ হয়নি ” ।

কি এই ডেটা ব্রিচ ও কি ভাবে তা আটকানো সম্ভব ??

ডেটা ব্রিচ , যা ডেটা লিকেজ নামেও পরিচিত, ডেটা ব্রিচ বা ডেটা লিক হল এমন একটি নিরাপত্তা লঙ্ঘনের ঘটনা যেখানে ব্যক্তিগত ডেটা যেমন পাসওয়ার্ড, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট নম্বর, স্বাস্থ্যসেবা ডেটা সহ অনান্য সংবেদনশীল বা গোপনীয় তথ্য ভিন্ন কোনও সংস্থার অ্যাক্সেস যোগ্য হওয়া ।

একবার ডেটা ব্রিচ হয়ে গেলে আপনার কিছু করনিয় থাকবে না, কিন্তু ডেটা ব্রিচ হওয়া রুখতে আপনি নিন্মলিখিত পদক্ষেপগুলি গ্রহন করতে পারেন:

  1. ডেটা ব্রিচের সবচেয়ে সাধারণ সমস্যা হল পাসওয়ার্ড এর ব্যবহার । তাই কোম্পানির উচিৎ সর্বদা একটি কঠিন পাসওয়াড ব্যবহার করা ।
  2. কোম্পানির উচিৎ ডেটা সুরক্ষা মান সম্পর্কিত পদ্ধতি তৈরি করা ও সেগুলি সময়ের সাথে ধারাবাহিকভাবে আপডেট করা ।
  3. রিমোট মনিটরিং আপনার নেটওয়ার্ক কে চব্বিশ ঘন্টা পর্যবেক্ষণ করবে ও ডেটা নিরাপত্তা প্রদান করবে ।
  4. কোম্পানির উচিৎ গুরুত্বপূর্ণ ডেটার নিয়মিত ব্যাক আপ করা, যাতে ডেটা ক্ষতি, সার্ভার ক্র্যাশ এর মতো ঘটনা ঘটলে সহজেই ডেটার পুনরুদ্ধার করা যায়।
WhatsApp Group Join Now
Telegram Channel Join Now
Share This Article
Leave a comment